ওয়ানডে স্ট্যাটাস পেল নামিবিয়া

নিজস্ব প্রতিবেধক
  • প্রকাশিত : শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল, ২০১৯
  • ৬৩০ দেখেছেন

ওমান ও যুক্তরাষ্ট্রের পর এবার ওয়ানডে স্ট্যাটাস পেয়েছে নামিবিয়া। শুক্রবার হংকংয়ের বিপক্ষে ১৫১ রানে বড় ব্যবধানে জয় পায় নামিবিয়া। এই জয়ে ওয়ার্ল্ড ক্রিকেটের রাউন্ড দুইয়ের পাঁচ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে ওয়ানডে স্ট্যাটাস পায় নামিবিয়া।

শুক্রবার ওয়ানডে মর্যাদা পাওয়া নামিবিয়াকে টুইটবার্তায় অভিনন্দন জানায় আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)।

শুক্রবার ওয়ার্ল্ড ক্রিকেটের রাউন্ড দুইয়ের ম্যাচে মুখোমুখি নামিবিয়া ও হংকং। এদিন নামিবিয়ার উইন্ডহোকের আফিস পার্কে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিং করে জেপি কটেজ ও স্টাফানি বার্ডের জোড়া সেঞ্চুরিতে ৫০ ওভারে ৩ উইকেটে ৩৯৬ রানের পাহাড় গড়ে নামিবিয়া।

টার্গেট তাড়া করতে নেমে শুরুতেই বিপদে পড়ে যায় হংকং। দলীয় ৪ রানে ওপেনার জেমি এটকিংসন বিদায় নেয়ার পর দ্বিতীয় উইকেটে অধিনায়ক আনশুমান রাতের সঙ্গে ১৩২ রানের জুটি গড়েন কিঞ্চিত শাহ।

এরপর সময়ের ব্যবধানে উইকেট পড়ে গেলে শেষ পর্যন্ত ২৪৫ রানে অলআউট হংকং। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৭৬ রান করেন আনশুমান রাত। এছাড়া ৫২ রান করেন কিঞ্চত শাহ।

এর আগে ব্যাটিংয়ে নেমে নামিবিয়া উদ্বোধনীতে সংগ্রহ করে ৪৫ রান। এরপর দ্বিতীয় উইকেটে স্টেফেন বার্ডের সঙ্গে ২৪৩ রানের রেকর্ড জুটি গড়েন জেপি কটেজ। এরপর মাত্র পাঁচ রানের ব্যবধানে ফেরেন কটেজ ও স্টেফেন।

মাত্র ৮৬ বলে নয় ছক্কা ও ১৫টি চারের সাহায্যে ১৪৮ রান করে আউট হন কটেজ। ১২৮ বলে ১০টি চার ও চারটি ছক্কায় ১২৮ রান করে আউট হন স্টেফেন। শেষ দিকে ব্যাটিং তাণ্ডব চালান জেজে স্মিথ ও জি গ্রিন। শেষ দিকে ৪৬ বলে ১০৩ রানের জুটি গড়েন তাড়া। মাত্র ২৬ বলে চার ছক্কা ও তিন চারের সাহায্যে ৬১ রান করে অপরাজিত খাকেন স্মিথ ৬১ রান। ২১ বলে ৪১ রান করেন জি গ্রিন।

গতকাল বৃহস্পতিবার ওয়ানডে মর্যাদা পায় ওমান ও যুক্তরাষ্ট্র। বাংলাদেশ-পাকিস্তান-ভারতসহ আইসিসির টেস্ট খেলুড়ে দলগুলোর সঙ্গে ওয়ানডে ক্রিকেট খেলার সুযোগ পেল নতুন এই দুই দল। ওয়ানডে স্ট্যাটাস পাওয়া নতুন তিন দল ওমান, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও নামিবিয়া এখন থেকে আইসিসির অন্য চারটি সহযোগী সদস্য দলের মতো তারাও ওয়ানডে ম্যাচ খেলার সুযোগ পাবে।

ক্রিকেট কাউন্সিলের সহযোগী সদস্য দেশ নামিবিয়ায় অনুষ্ঠিত আইসিসি ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট লিগের দ্বিতীয় রাউন্ডে শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে বুধবার স্বাগতিক নামিবিয়াকে ৪ উইকেট পরাজিত করে ওমান।

এই জয়ে ৬ দলের মধ্য থেকে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের কারণে ওয়ানডে স্ট্যাটাস পেল ওমান। এছাড়া ওয়ানডে মর্যাদা পেয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

আইসিসির পূর্ণ সদস্য তথা টেস্ট খেলুড়ে দল ১২টি। ভারত, নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, শ্রীলংকা, পাকিস্তান, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, বাংলাদেশ, জিম্বাবুয়ে, আফগানিস্তান ও আয়ারল্যান্ড।

এই ১২টি দলের সঙ্গে সহযোগী সদস্য হিসেবে আছে ৮৮টি দল। আর এই ৮৮টি দলের মধ্য থেকে চারটি দল (স্কটল্যান্ড, নেপাল, আরব আমিরাত ও নেদারল্যান্ডস) ওয়ানডে খেলার মর্যাদা আগেই পেয়েছে। তাদের সঙ্গে নতুন সহযোগী দল হিসেবে ওয়ানডে খেলার সুযোগ পেল ওমান, যুক্তরাষ্ট্র ও নামিবিয়া।

শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

টাকা নিয়ে দলে নির্বাচনের অভিযোগ উঠল সাবেক আইপিএল তারকার বিরুদ্ধে। বেশ কিছু ক্রিকেট সংস্থার কর্মকর্তা নজরদারিতে রয়েছেন।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্ৰতিবেদন অনুযায়ী, সিকে নাইডু ট্রফিতে হিমাচল প্ৰদেশের অনূর্ধ্ব-২৩ দলে সুযোগ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে এক ক্রিকেটারের কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে আইপিএল তারকা ও রাজ্য ক্রিকেট সংস্থার একাধিক কর্তার বিরুদ্ধে।

উত্তর প্রদেশের আনশুল রাজ নামের এক ক্রিকেটার এমন অভিযোগ করেন।  অনূর্ধ্ব-২৩ দলে সুযোগ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে ১০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ায় সরাসরি অভিযুক্ত গুরুগ্রামের এক করপোরেট ম্যানেজমেন্ট ফার্মের প্রেসিডেন্ট আশুতোষ বোরা।

দিল্লি, অরুণাচল প্রদেশ, উত্তরাখণ্ড ক্রিকেট সংস্থা এবং বিহার টি১০ ক্রিকেট আয়োজকদের নোটিশ পাঠানো হয়েছে পুলিশের পক্ষ থেকে।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে- করপোরেট ম্যানেজমেন্ট ফার্মের প্রেসিডেন্ট আশুতোষ বোরা ও সংস্থার ম্যানেজিং ডিরেক্টর তার বোন চিত্রাকে ৩ সেপ্টেম্বর পুলিশ গ্রেফতার করে।

এমন অভিযোগ নিয়ে আনশুল জানান, সিকিম দলের সুযোগ দেওয়ারও প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয় তাকে। তবে শেষপর্যন্ত উত্তর প্রদেশ ক্রিকেটার বুঝতে পারেন তিনি প্রতারণার শিকার হয়েছেন।

আনশুল রাজের অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে- দরিদ্র সাধারণ পরিবারের হলেও দেশের হয়ে খেলার স্বপ্ন আমার বহুদিনের। অভিযুক্তরা আমাকে কার্যত ফকির করে দিয়েছে। ওদের বিরুদ্ধে যেন মামলা দায়ের করা হয়।

অভিযোগে আরও বলা হয়েছে, দিল্লির হয়ে বহুদিন টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট খেলা জাভেদ খানকে সেই সংস্থার মুখ্য হিসেবে ব্যবহার করা হতো। মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের স্কোয়াডেও এক সময় ছিলেন জাভেদ খান।

টাকা দিলেই দলে সুযোগ!

LifePharm