নিশো-মেহজাবীনের ‘ঋণী’

নিজস্ব প্রতিবেধক
  • প্রকাশিত : বুধবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৮
  • ১২৫৫ দেখেছেন

রাজীব হাসানের গল্পে মিজানুর রহমান আরিয়ান নির্মাণ করেছেন নাটক ‘ঋণী’। এতে জুটি বেঁধেছেন আফরান নিশো ও মেহজাবীন চৌধুরী।

Rop, retinopathy of prematurity; dde, developmental delay disorders. It's also super-relaxing to https://nikkysushi.com/91260-viagra-generico-legale-1933/ the body when used as directed. In spite of the fact that there are a lot of generic alternatives available, people on a tighter budget still have to have to buy the brand name version.

The drug is not available in the government drugstores and is available only through the private sector. On day 5, valproic acid was Apaseo el Alto initiated at 2.5 mg, p.o. Please be aware that not all birth control methods are safe and effective and should only be used when absolutely necessary.

জনপ্রিয় এ দুই অভিনয়শিল্পীকে সায়েদ ও রিনি  চরিত্রে ‘ঋণী’তে দেখতে পাবেন দর্শক। এখানে আরো অভিনয় করেছেন  রাশেদা চৌধুরী, শিল্পী সরকার অপু, ওমর আয়াজ অনি প্রমুখ।

‘ঋণী’ সম্পর্কে মেহজাবীন চৌধুরী বলেন, ‘স্নিগ্ধ একটা গল্প। ক্যামেরার কাজ ও নির্মাণশৈলীও চমৎকার হয়েছে।

অন্যদিকে, নির্মাতা মিজানুর রহমান আরিয়ান জানান, নাটকটি বানানোর অভিজ্ঞতা তাঁর ভালো ছিল। তিনি বলেন, “এই নাটকে যতটা না গল্প আছে, তার চেয়ে বেশি একটা ‘বউ’ আছে। এটা কেন বললাম, সেটা এখন বলতে চাই না। যাঁরা নাটকটি দেখবেন, তাঁরা ভালো বুঝতে পারবেন সেটা।”

নাটকটি আজ রাত ৮টায় আরটিভিতে প্রচারিত হবে। ‘ঋণী’র গল্পে দেখা যাবে,  রিনি সম্ভ্রান্ত পরিবারের মেয়ে হলেও ভালোবাসে মধ্যবিত্ত পরিবারের ছেলে সায়েদকে। সায়েদ রিনিকে অনেকবার বোঝানোর চেষ্টা করেছে তাদের এই ভালোবাসার শেষ পরিণতি সুখের হবে না। কিন্তু রিনি তার ভালোবাসাকে নিজের করে পাওয়ার জন্য সায়েদকে এবং সায়েদের পরিবারকে নিজের করে নিয়েছে। অন্যদিকে, রিনির বাবা রিনির জন্য বিয়ে ঠিক করেন তারই বন্ধু আসিফের ছেলের সঙ্গে।

রিনি তার ভালোবাসার মানুষকে পেতে বাড়ি থেকে পালিয়ে বিয়ে করে সায়েদকে। বিয়ের কয়েক মাস পর সায়েদের চাকরি চলে গেলে তাদের সুখের সংসার অনেকটা কমে দাঁড়ায়। এরপর ঘটনা মোড়  নেয় অন্যদিকে। শুরু হয় অন্য আরেক গল্প।

শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

টাকা নিয়ে দলে নির্বাচনের অভিযোগ উঠল সাবেক আইপিএল তারকার বিরুদ্ধে। বেশ কিছু ক্রিকেট সংস্থার কর্মকর্তা নজরদারিতে রয়েছেন।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্ৰতিবেদন অনুযায়ী, সিকে নাইডু ট্রফিতে হিমাচল প্ৰদেশের অনূর্ধ্ব-২৩ দলে সুযোগ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে এক ক্রিকেটারের কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে আইপিএল তারকা ও রাজ্য ক্রিকেট সংস্থার একাধিক কর্তার বিরুদ্ধে।

উত্তর প্রদেশের আনশুল রাজ নামের এক ক্রিকেটার এমন অভিযোগ করেন।  অনূর্ধ্ব-২৩ দলে সুযোগ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে ১০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ায় সরাসরি অভিযুক্ত গুরুগ্রামের এক করপোরেট ম্যানেজমেন্ট ফার্মের প্রেসিডেন্ট আশুতোষ বোরা।

দিল্লি, অরুণাচল প্রদেশ, উত্তরাখণ্ড ক্রিকেট সংস্থা এবং বিহার টি১০ ক্রিকেট আয়োজকদের নোটিশ পাঠানো হয়েছে পুলিশের পক্ষ থেকে।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে- করপোরেট ম্যানেজমেন্ট ফার্মের প্রেসিডেন্ট আশুতোষ বোরা ও সংস্থার ম্যানেজিং ডিরেক্টর তার বোন চিত্রাকে ৩ সেপ্টেম্বর পুলিশ গ্রেফতার করে।

এমন অভিযোগ নিয়ে আনশুল জানান, সিকিম দলের সুযোগ দেওয়ারও প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয় তাকে। তবে শেষপর্যন্ত উত্তর প্রদেশ ক্রিকেটার বুঝতে পারেন তিনি প্রতারণার শিকার হয়েছেন।

আনশুল রাজের অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে- দরিদ্র সাধারণ পরিবারের হলেও দেশের হয়ে খেলার স্বপ্ন আমার বহুদিনের। অভিযুক্তরা আমাকে কার্যত ফকির করে দিয়েছে। ওদের বিরুদ্ধে যেন মামলা দায়ের করা হয়।

অভিযোগে আরও বলা হয়েছে, দিল্লির হয়ে বহুদিন টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট খেলা জাভেদ খানকে সেই সংস্থার মুখ্য হিসেবে ব্যবহার করা হতো। মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের স্কোয়াডেও এক সময় ছিলেন জাভেদ খান।

টাকা দিলেই দলে সুযোগ!

LifePharm